শুক্রবার, অগাস্ট ১২

স্বপ্ন জয়ের অপেক্ষায় ইংল্যান্ডের মেয়েরা

0

স্পোর্টস রিপোর্ট: ফুটবলে মেয়েদের কোন টুর্নামেন্টেই চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি ইংল্যান্ড। শেষ তিনটি মেজর টুর্নামেন্টেই স্বপ্নভঙ্গের গল্প উপহায় দেয় তাদের ভক্ত-অনুরাগীদের। এমনকি ছেলেদের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ জেতারও হাতছানি ছিল ইংল্যান্ডে। কিন্তু সেখানেও সেই ব্যর্থতার গল্প। স্বপ্ন জয়ের খুব কাছাকাছি এসেও পারেননি হ্যারি কেইন-রহিম স্টার্লিংরা। ইংলিশদের হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় ইতালি। সেই ক্ষতে প্রলেপ দেয়ার সুযোগ তৈরি করল ইংল্যান্ড নারী ফুটবল দল। সুইডেনকে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়েই এবারের মেয়েদের ইউরোর ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করল তারা। মঙ্গলবার রাতে ব্রামাল লেন স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের মেয়েরো ৪-০ গোলের বড় ব্যবধানে বিধ্বস্ত করে সুইডেনকে। এবারের ইউরোতে শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলে সুইডেন। যে কারণে শেষ চারের লড়াইয়েও ফেবারিটের তকমাটা গায়ে মাখানো ছিল তাদের। কিন্তু সেমিফাইনালেও নিজেদের দাপট অব্যাহত রাখে ইংল্যান্ডের মেয়েরা। এদিন পুরো ম্যাচেই নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করে খেলে যায় তারা। ৫৮ শতাংশ বল দখলে রেখে ১৭টি শটের ৮টি লক্ষ্যে রাখে ইংল্যান্ড। বিপরীতে ৪২ শতাংশ বল দখলে রাখা সুইডেন ১২টি শটের ৩টি লক্ষ্যে রাখে। তবে গোলের জন্য অপেক্ষা করতে হয় ম্যাচের ৩৪ মিনিট পর্যন্ত। আর্সেনাল ফরোয়ার্ড বেথ মিদের গোলে প্রথম এগিয়ে যায় ইংল্যান্ড। এর ফলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় সানা উইগম্যানের দল। দ্বিতীয়ার্ধেও নিজেদের দাপট দেখায় ইংল্যান্ড। ৪৮ মিনিটেই গোল ব্যবধান দ্বিগুণ করে তারা। এবার গোলের নায়ক স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সিলোনার ইংলিশ রাইট-ব্যাক লুসি ব্রোঞ্জ। ৬৮ মিনিটে স্কোরশিটে নাম লেখান ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তারকা এলিসা রুশো। তারপরও গোল উৎসব থামেনি তাদের। ম্যাচের বয়স যখন ৭৬ মিনিট তখন সুইডেনের জালে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন চেলসি ফরোয়ার্ড। এর ফলে ৪-০ গোলের বড় ব্যবধানের পরাজয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে সুইডেন। সেইসঙ্গে অপ্রতিরোধ্য গতিতে ছুটে চলা সুইডিশদের জয়রথও থামালো তারা। ২০১৯ সালের পর এটাই তাদের প্রথম হার। সর্বশেষ গত বছরের টোকিও অলিম্পিকের ফাইনালে পেনাল্টি শ্যূটআউটে হেরে মাঠ ছেড়েছিল সুইডেন। ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে ইতোমধ্যেই দুই বার ফাইনাল খেলেছে ইংল্যান্ড। কিন্তু এখন পর্যন্ত শিরোপার স্বাদ পায়নি তার। সবশেষ ২০০৯ সালের উয়েফা ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপেরও ফাইনালে উঠেছিল ইংলিশরা। কিন্তু দুর্ভাগ্য তাদের। সেবার জার্মানির কাছে হেরে শিরোপা স্বপ্নভঙ্গ হয় তাদের। এর আগে ১৯৮৪ সালে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের টিকেট কেটেছিল ইংল্যান্ড নারী দল। সেবার এই সুইডেনের কাছেই পেনাল্টি শ্যূটআউটে হেরে যায় তারা।এবার তৃতীয়বারের মতো ফাইনালে পৌঁছে প্রথম শিরোপা জয়ের স্বপ্নে বিভোর ইংল্যান্ড। আগামী ৩১ জুলাই দেশটির ঐতিহ্যবাহী ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে এবারের মেয়েদের ইউরোর শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ জার্মানি-ফ্রান্সের মধ্যকার বিজয়ী দল। ওয়েম্বলিতে এবার প্রত্যাশা করা হচ্ছে ৮৭,০০০ দর্শক থাকবেন। আর সেখানেই ইংল্যান্ডের লক্ষ্য ছেলে এবং মেয়েদের মধ্যে দীর্ঘ ৫৬ বছরের শিরোপা-খরা ঘুচানো। পারবে কী এবার ইংল্যান্ডের মেয়েরা? অপেক্ষা এখন সেটাই দেখার।

Share.