সোমবার, ফেব্রুয়ারী ২৬

যুক্তরাজ্যে লরিতে নিহত ৩৯ জনের বেশিরভাগই ভিয়েতনামের

0

ডেস্ক রিপোর্ট: চীন নয়, যুক্তরাজ্যে লরিতে নিহত ৩৯ জনের বেশিরভাগই ভিয়েতনামের নাগরিক। এমনটাই জানিয়েছেন ভিয়েতনামের একজন যাজক। নিহতদের বেশিরভাগই ওই যাজকের এলাকার মানুষ বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। অঞ্চলটির লোকজন মূলত ধান চাষের ওপর নির্ভরশীল। শনিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে রয়টার্স। মঙ্গলবার ট্রাক লরিটিতে মরদেহগুলোর সন্ধান মিললে প্রাথমিকভাবে এগুলোকে চীনা নাগরিকদের দেহাবশেষ বলে সন্দেহ করেছিল পুলিশ। কিন্তু ভিয়েতনামিজ ক্যাথলিক যাজক ফাদার অ্যান্টনি ডাং হু নম-এর নতুন দাবির ঘটনায় পুলিশের ধারণা ভুল বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত চীন ও ভিয়েতনাম দূতাবাস জানিয়েছে, বিষয়টি নিয়ে তারা ব্রিটিশ পুলিশের সঙ্গে কাজ করছে। ফাদার অ্যান্টনি ডাং হু নম নামের ভিয়েতনামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের ওই ক্যাথলিক যাজক রয়টার্সকে জানিয়েছেন, তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। এদিকে যুক্তরাজ্যের এসেক্সে উদ্ধার হওয়ার ওই লরিতে ৩৯ অভিবাসীর মরদেহ পাওয়ার ঘটনায় চার সন্দেহভাজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। হত্যা ও হত্যা ষড়যন্ত্রের অভিযোগে তাদের দুইজনকে বুধবার (২৩ অক্টোবর) ওয়ারিংটন থেকে ও একজনকে শুক্রবার দেশটির স্টেনসটেড বিমানবন্দর আটক করা হয়। আর বুধবার থেকে গ্রেফতার রয়েছে ট্রাকটির ট্রাইভার বরিনসন (২৫)। অধিকতর তদন্তের জন্য জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রেখেছে পুলিশ। বুধবার যুক্তরাজ্যের এসেক্সে একটি লরি থেকে ৩৯টি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃতদের মধ্যে ৩১ জন পুরুষ ও ৮ জন নারী। এ ঘটনায় সেদিনই উত্তর আয়ারল্যান্ড থেকে সন্দেহভাজন হত্যাকারী হিসেবে ২৫ বছরের লরি চালককে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আটককৃতদের মধ্যে এক দম্পতিও রয়েছে। তাদের উভয়ের বয়স ৩৮ বছর। আর স্টেনসটেড বিমানবন্দর থেকে আটককৃত ব্যক্তির বয়স ৪৮ বছর। সে উত্তর আয়ারল্যান্ডের নাগরিক। ধারণা করা হচ্ছে, এই অভিযানের সঙ্গে গ্রেফতারকৃত লরি ড্রাইভারের যোগসূত্র আছে। মরদেহ উদ্ধারের বিষয়ে যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লিও শিয়াওমিং বলেন, মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে নিশ্চিত ও কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছে বেইজিং। এ সময় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান চীনা রাষ্ট্রদূত। হত্যাকাণ্ডের পাশপাশি পুলিশ আরেকটি তদন্ত শুরু করেছে। যুক্তরাজ্যে অভিবাসীদের পাচারকারী অপরাধীচক্রের এই ঘটনায় কোনও ভূমিকা রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। গ্রেফতারকৃত রবিনসন যুক্তরাজ্যে শরণার্থীদের নিয়ে আসার পরিকল্পনা সম্পর্কে সচেতন কিনা তাও তদন্ত করা হচ্ছে। রয়টার্স জানিয়েছে, লরিতে একটি রেফ্রিজারেশন ইউনিট যুক্ত ছিল। ঠাণ্ডার ফলে অভিবাসীদের মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে। কারণ লরির কন্টেইনারের তাপমাত্রা ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল। এর আগে ২০০০ সালে কেন্টের ডোভার এলাকায় একটি কন্টেইনারে ৫৮ চীনা নাগরিককের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছিল।

Share.